রোহিঙ্গাদের ফেরাতে চার দেশ সফরে যাচ্ছে সংসদীয় কমিটি

আলোচিত সংবাদ

রোহিঙ্গাদের ফেরাদের আশিয়ানভুক্ত চার দেশে সফরে যাচ্ছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। চলতি মাসের শেষের দিকে এবং নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া ও সিঙ্গাপুর সফর করবেন তারা। এর সঙ্গে ফিলিপাইন সফরের পরিকল্পনা নিলেও অবস্থার বিবেচনায় সেই পরিকল্পনা বাদ দিয়েছে কমিটি।

মঙ্গলবার সংসদ ভবনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সপ্তম বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

ফারুক খান বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আমরা একটি সফরে যাচ্ছি। এ মাসের শেষের দিকে সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ড যাব। এ ব্যাপারে দুই দেশ থেকে কনফার্মেশন চলে এসেছে। এরপর আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে যাবো ভিয়েতনাম ও কম্বোডিয়ায়।

কেন তারা যাচ্ছেন এবং এতে কী ফল বয়ে আনবে সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা কিন্তু যাচ্ছি আসিয়ানভুক্ত দেশগুলোয়। আশিয়ান দেশগুলোতে আমরা দেখেছি বেশকিছু দেশ আমাদের পক্ষে রয়েছে। যেমন- মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া আমাদের পক্ষে। আমরা আইডেন্টিফাই করেছি চার-পাঁচটা দেশ এ ইস্যুতে আমাদের পক্ষ নেয়নি। ফিলিপাইন আমাদের পক্ষ নেয়নি। সিঙ্গাপুর বিপক্ষে অবস্থান না নিলেও নীরব। নীরব থাকার কারণ বার্মার সঙ্গেও তাদের গোলমাল রয়েছে। আমাদের সমর্থন দিয়ে তারা গোলমালটা আর বাড়াতে চায় না। এটা আমরা বুঝতে পেরেছি। আর ভিয়েতনাম ও কম্বোডিয়া চুপচাপ।’

একটু বেশি আমাদের বিরুদ্ধে বলছে ফিলিপাইন। আমাদের বিরুদ্ধে ফিলিপাইনের বলার কারণ, মারো মুসলিম নিয়ে তাদের প্রবলেম। সুতরাং তারা কিন্তু পুরা জিনিসটাকে একটা মুসলিম ম্যাটার হিসেবে নিচ্ছেন। তারা মনে করে এসব মুসলিম যেখানে যায় সেখানে গোলমাল করে। তাই ফিলিপাইনে যাওয়ার কথা থাকলেও সেই সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে এসেছে সংসদীয় কমিটি।’

এদিকে সংসদ সচিবালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৈঠকে অর্থনৈতিক কূটনীতিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভূমিকা ও সফলতা নিয়ে প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। সারাবিশ্বে অর্থনৈতিক কূটনীতি আরও জোরদার করতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অগ্রণী ভূমিকা পালন করার সুপারিশ করা হয় বৈঠকে। বর্তমান সময় পর্যন্ত বিভিন্ন দেশে কী পরিমাণ পণ্য রফতানি করা হয়েছে, বিভিন্ন মিশন থেকে সে বিষয়ে প্রতিবেদন সংগ্রহ করে পরবর্তী বৈঠকে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়েছে।

বৈঠকে কমিটির সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, গোলাম ফারুক খন্দ. প্রিন্স, নাহিম রাজ্জাক এবং কাজী নাবিল আহমেদ অংশগ্রহণ করেন।