মাহফুজুর রহমানকে দেখতে গিয়ে কাঁদলেন তিন বোন

বিনোদন

দশবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান রাজধানীর গ্রিন লাইফ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তার শারীরিক অবস্থা খুবই গুরুতর বলে জানিয়েছে তার পরিবার। বৃহস্পতিবার দুপুরে নন্দিত এই চিত্রগ্রাহকের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে খোঁজ নিতে মাহফুজুর রহমান খানের স্ত্রীর ভাতিজা আসিফ রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তিনি বলেন, ‘ফুপা এখনো বেঁচে আছেন। তার লাইফ সাপোর্টও চলছে। মৃত্যুর খবরটি গুজব ছাড়া আর কিছুই নয়।’

এদিকে মাহফুজুর রহমানের অসুস্থতার খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে গিয়েছিলেন তিন কন্যাখ্যাত চিত্রনায়িকা সুচন্দা, ববিতা ও চম্পা। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হাসপাতালে গিয়ে প্রিয় এই মানুষটিকে দেখে এসেছেন তারা। তাদের দেখে চোখের পানি ফেলেছেন মাহফুজুর রহমান। চোখের পানি আটকে রাখতে পারেননি সুচন্দা, ববিতা ও চম্পাও।

চম্পা বলেন, ‘আমরা তিন বোন যখন মাহফুজ ভাইকে দেখতে আইসিইউতে গেলাম, উনাকে ডাক দিলাম, তিনি তখন চোখের জল ফেলেছেন। আমার মনে হয়েছে, তিনি আমাদের চিনতে পেরেছেন। আমরাও চোখের পানি আটকে রাখতে পারিনি। এমন প্রাণবন্ত একজন মানুষটিকে এ অবস্থায় দেখতে হবে ভাবিনি।’

গত ২৬ নভেম্বর রাত ১০টার দিকে খাবার খেতে গিয়ে ফুসফুসে খাবার আটকে অসুস্থ হয়ে পড়েন মাহফুজুর রহমান। অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজধানীর গ্রিনলাইফ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তারপর সেখানে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন তিনি।

১৯৭২ সালে প্রথম চলচ্চিত্রে কাজ করেন মাহফুজুর রহমান খান। এরপর আলমগীর কবির, আলমগীর কুমকুম, হুমায়ুন আহমেদ, শিবলি সাদিকের মতো চলচ্চিত্র পরিচালকদের সঙ্গে চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেন তিনি। চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণের জন্য দশবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছেন এই গুণীজন।

নিঃসন্তান মাহফুজুর রহমান খান স্ত্রীকে হারানোর পর একাই জীবন যাপন করতেন। নিঃসঙ্গতা কাটতে ডুবে থাকতেন চলচ্চিত্র আর চলচ্চিত্রের মানুষদের সঙ্গে গল্প আড্ডায়।