বিএনপি মানুষকে যন্ত্রণা দেয়, শান্তি দিতে পারে না: প্রধানমন্ত্রী

জাতীয়

বিএনপি ও আওয়ামী লীগ সরকারের মধ্যে তুলনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ওরা ধ্বংস করতে জানে, সৃষ্টি করতে পারে না। বিএনপির কাজই হলো মানুষকে যন্ত্রণা দেওয়া। তারা শান্তি দিতে পারে না।

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির সময় বিদ্যুৎ উৎপাদন দুর্নীতির কারণে কমে গিয়েছিল। আমরা এসে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়িয়েছি। তাদের কাজই হলো দুর্নীতি করা, লুটপাট করা আর মানুষকে নির্যাতন করা। হাওয়া ভবন খুলে লুটপাট করার সুযোগ তৈরি করা হয়েছিল।’

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিদেশ থেকে এতিমের টাকা এসেছিল, সেই টাকা চলে গেল খালেদা জিয়ার অ্যাকাউন্টে। সেই মামলায় খালেদা জিয়া এখন জেল খাটছেন। তার ছেলেও দশ ট্রাক অস্ত্র মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ জনগণের জীবনযাপন উন্নয়ন করার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছি, জনগণের পুষ্টির দিকে নজর দিচ্ছি। আমরা ঢাকা শহরে ১১টি সরকারি স্কুল ও ছয়টি কলেজ করে দিচ্ছি। এভাবে বিভিন্ন এলাকাভিত্তিক সরকারি স্কুল করা কিংবা যেখানে স্কুল নেই সেখানে সরকারি স্কুল করার ব্যবস্থা করছি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা যখন বিরোধী দলে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর নির্যাতন করা হয়েছে। হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হাড় গুঁড়ো করে দিয়েছে। চোখ তুলে নিয়েছে। বোমা মেরেছে, গ্রেনেড মেরেছে। বিএনপি ও জাতীয় পার্টি হলো খাওয়া পার্টি।’

‘আওয়ামী লীগ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য কাজ করেছে। আমাদের নীতি-আদর্শ হলো জনগণের ভাগ্য পরিবর্তন করা, জনগণের জীবনমান নিশ্চিত করা। জাতির পিতা মন্ত্রিত্বের পদ ছেড়ে দিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদকের পদ নিয়েছিলেন জনগণের সেবা করার জন্য। কাজেই আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীর বঙ্গবন্ধুর আদর্শে দীক্ষা নিতে হবে।’